সংবাদ লাইভ @ সিক্সঃ ২৪ ঘন্টায় ব্রিটেনে চাকুরীর দুঃসংবাদ ১০ হাজার কর্মচারীর, হংকং এর নাগরিকদের সুবিধা প্রদান

প্রকাশিত: ৬:১৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১, ২০২০ | আপডেট: ৬:১৬:অপরাহ্ণ, জুলাই ১, ২০২০

লন্ডন টাইমস লাইভ। করোনা মহামারীতে ব্রিটেনের চাকুরীর বাজারে ধ্বস নামতে শুরু করেছে। জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান হ্যারডস, জন লুইস, এয়ার বাস, ইজি জেট, আপার ক্র্যাস্টের মতো বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মচারী কমিয়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

সব মিলিয়ে ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে ১০,০০০ লোকের চাকুরী চলে যাওয়ার দুঃসংবাদ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

So far:

  • Aerospace company Airbus plans to cut 15,000 jobs, 1,700 of which are in the UK. The firm has sites in Broughton, north Wales and Filton, Bristol

  • Budget airline EasyJet announced plans on Tuesday it plans to pull out of Stansted, Southend and Newcastle Airports, possibly putting more than 700 jobs at risk

  • Upper Crust said 5,000 jobs could be cut amid plunging passenger numbers at railway stations and airports

  • Arcadia, which owns fashion retailers Topshop, Dorothy Perkins and others, said around 500 of its 2,500 head office workforce could be cut

  • Luxury department store Harrods said it plans to cut 14 per cent of its 4,800 workforce, which equates to just under 700 jobs being lost

  • Menswear company TM Lewin announced it will close all UK shops and that 600 UK jobs will go

  • Furniture chain Harveys has gone into administration, putting 240 jobs at risk

  • And high street stalwart John Lewis is planning to cut jobs, although the number of stores and jobs affected are yet to be decided, according to a memo obtained by the Evening Standard

এদিকে,চীন হংকং-এর উপর এক নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইন প্রয়োগের পর ব্রিটেন সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে ওই ভূখণ্ডের ৩০ লাখ বাসিন্দাকে ব্রিটেনে থাকতে এবং কাজ করতে দেওয়া হবে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, নতুন নিরাপত্তা আইনে হংকং-এর স্বাধীনতা ক্ষুন্ন হয়েছে এবং যারা এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তাদেরকে ব্রিটেনে আসার সুযোগ দেওয়া হবে।

তারা পাঁচ বছরের জন্য ব্রিটেনে আসতে পারবে। এর পর তারা নাগরিকত্বের জন্যেও আবেদন করতে পারবেন।

এর আগে চীন ব্রিটেনের এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে ক্রুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নতুন আইনটি পাস করে হংকং-এ কর্তৃপক্ষ ১৯৮৫ সালের সিনো-ব্রিটিশ যৌথ ঘোষণাকে লঙ্ঘন করেছে।

এই ঘোষণায় বলা হয়েছিল ১৯৯৭ সালে ব্রিটেন হংকং-এর প্রশাসন চীনের কাছে ফিরিয়ে দেবার পর ৫০ বছর ওই এলাকাটি কী কী স্বাধীনতা ভোগ করবে।

উল্লেখ্য,হংকং-এ চীনের জারি করা বিতর্কিত একটি আইনে পুলিশ প্রথমবারের মতো গ্রেফতার করতে গেলে সংঘর্ষ হয়েছে।

প্রতিবাদকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে জলকামান ও মরিচের গুড়ো ব্যবহার করা হয়েছে।

ছুড়ি মারা হয়েছে একজন পুলিশের হাতে।

১৮০ জনেরও বেশি লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে, তাদের মধ্যে সাতজনকে করা হয়েছে নতুন আইনের আওতায়।