টেস্ট এন্ড ট্রেসের আইসোলেশনের তথ্য শেয়ারে ঐকমত্য পুলিশ এবং ডিওএইচএস

প্রকাশিত: ৮:৫১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | আপডেট: ১১:১০:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

লন্ডন টাইমস নিউজ, নাইট এডিশন। ব্রিটেনের করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়ে গেছে। এবং এর প্রতিরোধে বিধিনিষেধ করাকড়ি আরোপে সরকার এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থা একের পর এক নাটকীয় সব সিদ্ধান্ত নিচ্ছে । সিদ্ধান্তগুলো এখন খুব দ্রুত আসছে। গণতান্ত্রিক কাঠামোগুলোকে খুব একটা এখন ব্যবহার প্র্যাকটিস কমে আসছে। ফলে তৈরি হচ্ছে বিভ্রান্তি শংকা এবং কনফিউশন।

সম্প্রতি ন্যাশনাল পুলিশ চীফ কাউন্সিল বা এনপিসিসি এবং ডিওএইচএস বা ডিপার্টম্যান্ট অব হেলথ এন্ড সোশ্যাল কেয়ারের মধ্যে মেমোরেন্ডাম অব আন্ডারস্ট্যান্ডিং সম্পাদিত হয়েছে, যাতে বলা হয়েছে ব্রিটেনে টেস্ট এন্ড ট্রেসের আওতায় যাদের কোভিড নাইন্টিন ধরা পরেছে এবং যাদের করোনা পজিটিভ বা সেজন্যে তাদের আইসোলেশনে যাওয়ার জন্য আনুষ্ঠানিক নোটিফিকেশনের এই তথ্য এখন থেকে ডিপার্টম্যান্ট পুলিশের সাথে শেয়ার করবে। অর্থাৎ আইসোলেশনের তথ্য পুলিশের অ্যাক্সেস থাকছে। কেস বাই কেস হিসেবে পুলিশকে এই তথ্য অবহিত করা হবে।

ব্রিটেনে বর্তমানে কারো করোনা ধরা পরলে ১০ দিন আইসোলেশনে থাকার বিধান রয়েছে। অথবা টেস্ট এন্ড ট্রেসের পর ফলাফল পজিটিভ আসলে ১০ দিনের আইসোলেশন বাধ্যতামূলক। ঘরের সদস্যদের ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। আইন ভং করলে প্রথমবার  ভঙ্গের জন্য ১০০০ পাউন্ড থেকে জরিওমানা গুণতে হবে, এবং  পূণরায় ও সিরিয়াস ভঙ্গের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১০,০০০ পাউন্ড জরিমানা গুণতে হবে।