ঢাকা ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে (রহ.) নিয়ে তার পরিবারের সম্মতি ছাড়া কোনো স্মারক বা প্রকাশনা বের করা যাবে না

LTN
প্রকাশিত অক্টোবর ২১, ২০২০
আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে (রহ.) নিয়ে তার পরিবারের সম্মতি ছাড়া কোনো স্মারক বা প্রকাশনা বের করা যাবে না

লন্ডন টাইমস নিউজ।হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাবেক আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে (রহ.) নিয়ে তার পরিবারের সম্মতি ছাড়া কোনো স্মারক বা প্রকাশনা বের করা যাবে না।

বস্তুনিষ্ঠ গবেষণা ছাড়া স্মারক প্রকাশ করলে তার অবিতর্কিত জীবন বিতর্কিত হওয়ার তীব্র আশঙ্কা রয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আল্লামা শফীর (রহ.) প্রতিষ্ঠিত আধ্যাত্মিক সংগঠন আঞ্জুমানে দাওয়াতে ইসলাহ বাংলাদেশ এবং তার পরিবারের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে এ আহ্বান জানানো হয়।

আল্লামা শফীর (রহ.) স্মারক গ্রন্থ প্রকাশনা উপলক্ষে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে তার দুই ছেলে মাওলানা মোহাম্মদ ইউসুফ ও মাওলানা আনাস মাদানীসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে মাওলানা আনাস মাদানী বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফীর পরিবার ও তার হাতেগড়া সংগঠন আঞ্জুমানে দাওয়াতে ইসলাহ যৌথ উদ্যোগে তার বর্ণাঢ্য জীবন নিয়ে সমৃদ্ধ স্মারক প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এমতাবস্থায় আল্লামা শফীকে নিয়ে আপাতত কেউ যেন স্মারক প্রকাশ না করে। কারণ বস্তুনিষ্ঠ গবেষণা ছাড়া স্মারক প্রকাশ করলে তার অবিতর্কিত জীবন বিতর্কিত হওয়ার তীব্র আশঙ্কা রয়েছে।

বক্তব্যে বলা হয়, আল্লামা আহমদ শফী কর্মজীবনের প্রায় ৮০ বছর দ্বীনের বহুমুখী খেদমত করেছেন। মুসলিম উম্মাহর জন্য রয়েছে তার বিরাট অবদান। তার বর্ণাঢ্য জীবনের নানা দিক সংরক্ষণ করা সবার কর্তব্য।

তার কর্মময় জীবন নিয়ে পূর্ব থেকেই চলছে চুলচেরা গবেষণা, এমনকি অনেকে তার জীবন নিয়ে পিএইচডিও করছেন।  তাই দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে জোর দাবি উঠেছে, তার বর্ণিল জীবনকে কাগজের পাতায় স্মারক হিসেবে প্রকাশ করার জন্য।

এ প্রেক্ষাপটে আল্লামা আহমদ শফীর পরিবারবর্গ এবং তার হাতেগড়া সংগঠন আঞ্জুমানে দাওয়াতে ইসলাহর যৌথ উদ্যোগে বর্ণাঢ্য স্মারক প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

আনাস মাদানী বলেন, আল্লামা আহমদ শফীর জীবনের সব দিক নিয়ে অত্যন্ত বস্তুনিষ্ঠ গবেষণা করা অপরিহার্য। তাই তার পরিবারবর্গ এবং তার হাতেগড়া আধ্যাত্মিক সংগঠন আঞ্জুমানে দাওয়াতে ইসলাহ বাংলাদেশ ছাড়া আপাতত কেউ যেন স্মারক প্রকাশ না করে।

দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা আল্লামা শাহ আহমদ শফীর খলিফা, মুরিদ, ছাত্র-শিষ্য এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের লেখা ও তথ্য দিয়ে স্মারক কমিটিকে সহযোগিতা করারও আহ্বান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।