সাংসদ খোকা ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে ‘হত্যা করে’ ফাঁসির মঞ্চে যেতে চান

প্রকাশিত: ৮:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০২০ | আপডেট: ৮:৫৫:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০২০

নারায়নোগঞ্জ সংবাদ দাতা। বিবিসি।ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুলে ম্যাক্রঁকে উদ্দেশ্য করে বাংলাদেশে একজন সংসদ সদস্য বলেছেন, মি. ম্যাক্রঁকে সামনে পেলে তিনি হত্যা করতেন।নারায়ণগঞ্জ -৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা সোমবার রাতে এক সমাবেশে এই মন্তব্য করেন। তার এই বক্তব্যের ১৩ মিনিটের একটি ভিডিও সংসদ সদস্য তার ফেসবুক পেইজে আপলোড করেছেন।

হেফাজতে ইসলামী প্রয়াত আমীর শাহ আহমদ শফীর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা এবং দোয়া মাহফিলের জন্য নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার আমিনপুর মাঠে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে লিয়াকত হোসেন খোকা বলছেন, “আমি শুধু একটি কথাই বলতে চাই, আজকে আমার প্রিয় নবী সম্বন্ধে যারা কটূক্তি করবে, ব্যঙ্গ করবে, আমি মুসলমান হিসেবে বলতে চাই, আমি কোন সংসদ সদস্য না এখন, …. ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রীকে (প্রেসিডেন্ট) বলতে চাই, আজকে তুই যদি আমার সামনে থাকতি, আমি তোকে হত্যা করতাম। হত্যা করে আমি ফাঁসির মঞ্চে হাসতে হাসতে যেতাম।”

‘কোন আপোষ নাই’

নারায়ণগঞ্জ সমাবেশের বক্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে লিয়াকত হোসেন খোকা বিবিসিকে বলেন, তিনি তার বক্তব্য সম্পর্কে এখনো অনড় আছেন।তিনি বলেন, মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি তার বক্তব্যে অনড় থাকবেন।একজন সংসদ সদস্যের কাজ হচ্ছে আইন প্রণয়ন করা। প্রকাশ্য জনসভায় কাউকে হত্যার করার ইচ্ছে প্রকাশ করে তিনি আইন ভঙ্গ করেছেন কি না?

এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “আমি একজন মুসলমান এবং আল্লাহর বান্দা এবং নবীর উম্মত হিসেবে এটা বলেছি। নবীর ব্যাপারে কোন আপোষ নাই।””আমি বক্তব্যের সময় বলেছি, আমি সংসদ সদস্য হিসেবে না, আমি একজন মুসলমান হিসেবে বলছি, নবীর উম্মত হিসেবে বলছি,” – তিনি বিবিসি বাংলাকে বলেন।

ম্যাক্রঁ বিরোধী শ্লোগান

ইসলামের নবীর কার্টুন দেখানোর পক্ষে অবস্থান নেওয়ার পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রঁ’র বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন ইসলামপন্থী দল ও সংগঠন রাস্তায় যখন তুমুল বিক্ষোভ করছে তখন নারায়ণগঞ্জের এই সংসদ সদস্য মন্তব্য করলেন।সে সমাবেশে উপস্থিত স্থানীয় এক সাংবাদিক বিবিসি বাংলাকে বলেন, সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন মাদ্রাসা থেকে বহু শিক্ষার্থী এই সমাবেশে যোগ দিয়েছে। সেখানে বিভিন্ন মাদ্রাসার শিক্ষক এবং হেফাজতে ইসলামীর স্থানীয় নেতারা মঞ্চে ছিলেন বলে জানিয়েছেন সে সাংবাদিক।এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ব্যক্তিরা সংসদ সদস্যকে ঘিরে উচ্চস্বরে শ্লোগান দিতে থাকে।

শ্লোগানে তারা বলতে থাকে, “বিশ্বনবীর অপমান, সইবে কোন মুসলমান।”এ সময় তারা ফ্রান্স এবং দেশটির প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রঁ বিরোধী শ্লোগান দিতে থাকে।

কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন

শ্লোগান শান্ত হয়ে আসলে সংসদ সদস্য লিয়াকত আবারও মাইকের সামনে সামনে দাঁড়িয়ে তার কথার পুনরাবৃত্তি করেন।ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে গালিগালাজ করে তিনি বলেন, “আজকে আমি যদি তোকে সামনে পেতাম, তোকে হত্যা করে হাসিমুখে ফাঁসির কাষ্ঠে যেতাম।”

এ সময় তিনি ফ্রান্সের সাথে বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহবান জানান।তিনি বলেন, “আমার নবীর বিরুদ্ধে যে বলবে তার সাথে কিসের সম্পর্ক?”

লিয়াকত হোসেন খোকা জাতীয় পার্টির একজন সংসদ সদস্য। বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে এ নিয়ে তিনি দুইবার সংসদ সদস্য হয়েছেন এবং তার পেশা ব্যবসা।