সময় ভালো যাচ্ছে না জ্যাক মার

প্রকাশিত: ৭:৪০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০২০ | আপডেট: ৭:৪৮:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০২০
NEW YORK, NY – SEPTEMBER 23: Alibaba Executive Chairman Jack Ma takes part in the “Valuing What Matters” Plenary Session during the third day of the Clinton Global Initiative’s 10th Annual Meeting at the Sheraton New York Hotel & Towers on September 23, 2014 in New York City. (Photo by Michael Loccisano/Getty Images)

অর্থ বাণিজ্য। লন্ডন টাইমস ডিজিটাল।চীনে বৃহত্তম অনলাইন সংস্থাগুলোর একচেটিয়া ব্যবসার ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতে যাচ্ছে দেশটির সরকার। বেইজিংয়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলোর ক্রমবর্ধমান প্রভাবের কারণে উদ্বেগ সৃষ্টি হওয়ায় নতুনভাবে এই নিয়ন্ত্রণ আরোপ করছে সরকার। নতুন নিয়মে ই–কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা, অ্যান্ট গ্রুপ, টেনসেন্টের পাশাপাশি খাদ্য বিতরণ প্ল্যাটফর্ম মেটুয়ানের মতো টেক কোম্পানিগুলো বিপাকে পড়তে পারে।

স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর মার্কেট রেগুলেশনের ২২ পৃষ্ঠার খসড়া নিয়মে প্রযুক্তি খাতের জন্য প্রতিযোগিতামূলক বিরোধী আচরণ কী হবে, তা সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে। নতুন নিয়ম অনুযায়ী কোম্পানিগুলো যাতে সংবেদনশীল ভোক্তা তথ্য শেয়ার করতে না পারে, সে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে। এ ছাড়া নতুন ক্ষুদ্র কোম্পানি খুঁজে বের করারও লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। বিধিমালায় এখন এমন সংস্থাগুলোর ওপরও লক্ষ রাখা হবে, যারা গ্রাহকদের তথ্য এবং ব্যয়ের অভ্যাসের ভিত্তিতে আলাদা আলাদা আচরণ করে।

এ খবরে ইতিমধ্যে পুঁজিবাজারে চীনের বৃহত্তম ই–কমার্স প্রতিষ্ঠান আলিবাবা ও জেডি ডট কমের শেয়ারের দর কমে গেছে। দুটি সংস্থায় ‘সিঙ্গেলস ডে’ উপলক্ষে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। মূলত, প্রেমিক জুটিগুলোর ভ্যালেন্টাইনস দিবসের অনুকরণে চীনা ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আলিবাবা এই সিঙ্গেলস ডে বা একাকী মানুষের জন্য এই দিবসের প্রচারণা শুরু করে। এটি একসঙ্গে ১১.১১ বা দুই ১১ হিসেবেও পরিচিত। আলিবাবার প্রতিদ্বন্দ্বী জেডি ডট কমও এটি পালন করে থাকে।

আলিবাবা এবং জেডি ডট কম চীনের অনলাইন খুচরা বাজারে আধিপত্য বিস্তার করছে। এই দুই কোম্পানি মিলে চীনা ই-কমার্সের তিন–চতুর্থাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৮৮ কোটিও বেশি মানুষ আলিবাবার প্ল্যাটফর্মের ব্যবহারকারী, যা চীনের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যার সমান।

আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা চীনের অন্যতম শীর্ষ ধনী জ্যাক মার ওপর বেশ কিছুদিন ধরেই সরকারের অসন্তোষ লক্ষ করা যাচ্ছে। এই মাসে জ্যাক মার আর্থিক প্রতিষ্ঠান অ্যান্ট ফাইন্যান্সিয়ালের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব আসার কথা ছিল শেয়ারবাজারে। তবে নীতিগত পরিবর্তন লুকানোর অভিযোগে সাংহাই শেয়ারবাজার অ্যান্ট গ্রুপের লিস্টিং স্থগিত করে।

সময় ভালো যাচ্ছে না জ্যাক মার

অ্যান্ট ফাইন্যান্সিয়ালের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বাজারে এলে স্বাভাবিকভাবেই জ্যাক মা আবারও চীনের শীর্ষ ধনী ব্যক্তি হতেন। কিন্তু সবকিছু পরিকল্পনামাফিক হলো না। হংকং ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জে ৩৪ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলারের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) আসার কথা ছিল অ্যান্ট ফাইন্যান্সিয়ালের। মনে করা হচ্ছিল, যা বিশ্বের বৃহত্তম আইপিও প্রস্তাব। চীনের আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা শেষ মুহূর্তে বাগড়া দেওয়ায় শেষমেশ আইপিও আর বাজারে আসেনি। অ্যান্ট ফাইন্যান্সিয়ালে জ্যাক মার প্রায় ১ হাজার ৭০০ কোটি ডলারের অংশীদারি আছে। তাতে জ্যাক মার সম্পদের পরিমাণ দাঁড়াত ৮ হাজার কোটি ডলার। তিনি আশা করেছিলেন, এই আইপিও হলে তিনি আবারও চীনের শীর্ষ ধনী হবেন। আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা গত বছর আলিবাবা থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগ করেন।