`অত্যাচারী-স্বৈরশাসকের নামে শপথ গ্রহণ করিনি`

প্রকাশিত: ৭:০৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০২০ | আপডেট: ৭:০৭:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০২০

এলটিএন ডিজিটাল।যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ জেনারেল ও জয়েন্ট চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান মার্ক মেলি বলেছেন, “আমরা সব সেনাবাহিনীর মধ্যে অনন্য। আমরা কোন রাজা বা রাণী, অত্যাচারী বা স্বৈরশাসকের নামে শপথ গ্রহণ করি না। আমরা কোন ব্যক্তির নামেও শপথ গ্রহণ করি না। আমরা কোন দেশ, গোত্র বা ধর্মের নামেও শপথ গ্রহণ করি না। আমরা কেবল সংবিধানের নামেই শপথ গ্রহণ করি। এই জাদুঘরে প্রতিনিধিত্ব করা প্রত্যেক সৈনিক, প্রত্যেক নাবিক, প্রত্যেক বৈমানিক, মেরিন, কোস্টগার্ড আমরা সবাই নিজেদের জীবনের মূল্যে তা রক্ষা করবো।”

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর যাদুঘর উদ্বোধনের সময় তিনি একথা বলেন। সিএনএন টেলিভিশন এবং অনলাইনে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

যদিও মার্ক মেলি দেশটির কংগ্রেসের সদস্যদের নির্বাচনের আগে গত আগস্ট মাসে জানিয়েছিলেন, “যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান ও আইন নির্বাচন পরিচালনার পদ্ধতি তৈরি করেছে এবং নির্বাচনের বিবাদ নিরসনে সেনাবাহিনীর কোন ভূমিকা আছে বলে মনে করি না। নির্বাচনের ফলে কোনো বিতর্ক তৈরি হলে তা নিরসনে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত এবং কংগ্রেস রয়েছে, সামরিক বাহিনী নয়।”

তাই নির্বাচনের পর এই মুহূর্তে যখন পরাজিত প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ফল মেনে নিতে চাইছেন না, তখন সামরিক বাহিনীর সবচেয়ে শীর্ষ কর্মকর্তা মেলির মুখে ‘সংবিধানের প্রতি নিজেকে নিবেদন করার’ বক্তব্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।এছাড়া মেলি ট্রাম্প ঘোষিত নবনিযুক্ত প্রতিরক্ষা সচিব ক্রিস্টোফার মিলারের পাশে দাঁড়িয়ে এসব কথা বলায় বিষয়টির গুরুত্ব আরো বেড়ে গেছে। মেলির বর্তমান বক্তব্য নির্বাচন নিয়ে তার পূর্বের বক্তব্য থেকে সরে আসার ইঙ্গিত কিনা এ নিয়ে হিসেব কষছে রাজনৈতিক সচেতন মহল।