মাধবদী পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ৮২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৮:৫১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২০ | আপডেট: ৮:৫১:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০২০

লন্ডন টাইমস নিউজ।নরসিংদীর মাধবদী পৌরসভার মেয়র মোশাররফ হোসেন প্রধানের বিরুদ্ধে ৮২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। আজ সোমবার দুপুরে মাধবদী বাজার মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে সংগঠনটির সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করা হয়।

তবে অভিযোগকে মিথ্যা ও বানোয়াট দাবি করে পৌর মেয়র মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘মাধবদী বাজার মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের ব্যবসায়ীদের কোনো টাকা আমি আত্মসাৎ করিনি। রাজনৈতিকভাবে আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য এসব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন মাধবদী বাজার মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. শফিউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন। এ সময় মাধবদী বাজার মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা ও ব্যবসায়ী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, মাধবদী বাজারের শিবুনাথ ও ভোলানাথ নামের দুই ব্যবসায়ী স্থানীয় বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে নগদ টাকা ও কাপড় কেনা বাবদ প্রায় ১৮ কোটি টাকা দেনা করেন। ওই দুই ব্যবসায়ী পরে দেউলিয়া হয়ে যান।

পাওনাদার ব্যবসায়ীদের অভিযোগের ভিত্তিতে মাধবদী বাজার মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের এক বৈঠকে পৌর মেয়র মোশাররফ হোসেন প্রধান ওই দুই ব্যবসায়ীর পক্ষে চার কোটি টাকা প্রদানের দায়িত্ব নেন। পরে পৌর মেয়র দেউলিয়া হওয়া শিবুনাথ ও ভোলানাথের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে মজুদ থাকা ৮২ লাখ টাকার কাপড় বিক্রি করেন। কিন্তু কাপড় বিক্রির ৮২ লাখ টাকা পাওয়ার বিষয়টি মৌখিকভাবে স্বীকার করলেও মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃপক্ষকে ওই টাকা বুঝিয়ে না দিয়ে তা আত্মসাৎ করেন। এ ব্যাপারে দফায় দফায় ওই টাকা বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য পৌর মেয়রকে তাগিদ দেওয়া হলে তিনি ‘দেই-দিচ্ছি’ বলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন।

ব্যবসায়ী নেতা মো. শফিউদ্দিন ও আনোয়ার হোসেন বলেন, পাওনাদার ব্যবসায়ীদের চাপে তাঁরা প্রথমে পৌর মেয়রকে টাকা পরিশোধের জন্য চিঠি দেন। চিঠির জবাবে মেয়র গত ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ওই টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু সময়মতো সে টাকা পরিশোধ না করে উল্টো তাঁদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।