কর্মহীন হয়ে পড়া হাজারো ইটভাটা শ্রমিকদের বিশাল মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৭:৪৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪৩:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২১

আশরাফুল ইসলাম গাইবান্ধা ।গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে অবৈধ ইটভাটা ধ্বংস বা গুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে কর্মহীন হয়ে পড়ায় হাজারো উপজেলার ইটভাটার নারী পুরুষ শ্রমিকেরা বিশাল এক মানববন্ধন করেছে । ১২ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত স্থানীয় মোড়ে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা। এসময় তারা তাদের দাবী আদায়ে বিভিন্ন শ্লোগান লিখে বুকে সাদা কাগজের প্লে কার্ড ব্যবহার করে।

উপজেলা ইট প্রস্তুতকারী শ্রমিক ইউনিয়ন আয়োজিত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ছাদেক আলী, শ্রমিক রেজাউল মিয়া, ফিরোজ মিয়া, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সাবু, সাধারণ সম্পাদক মাহামুদুজ্জামান প্রান্ত ও পলাশবাড়ী সাদুল্লাপুর মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজানুর রহমান ডিপটি এসময় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলার বিভিন্ন শ্রমজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় ভাটা মালিকগণ ।

বক্তারা বলেন, ‘করোনার সময় শ্রমিকদের হাতে কাজকর্ম না থাকায় খেয়ে না খেয়ে দিনযাপন করছেন । বর্তমানে চলমান ইট প্রস্তুত মৌসুমে তারা ইটভাটায় কাজ করে পরিবারের সস্যদের পেটে আহার যোগাতে পারছেন। ঠিক সেই সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে একের পর এক ইটভাটা গুঁড়িয়ে দেওয়ায় আমরা কর্মহীন হয়ে পড়েছি। এ অবস্থায় চলতি মৌসুমে ইটভাটায় শ্রমিকদের কর্মস্থানের সুযোগ অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। ’ তারা আরো বলেন এসব ভাটা স্থাপনের সময় সরকারি কর্মকর্তাদের দায়িত্ব হীনতায় ম্যানেজ প্রক্রিয়ায় গড়ে উঠার পর ভাটা গুলো গড়ে উঠে। সেই সরকারি কর্মকর্তারাই আবার এসব ভাটা অবধৈ বলে অভিযান পরিচালনা করে বেছে বেছে ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করে । উল্লেখ্য জেলায় প্রায় আড়াই শতাধিক অবৈধ ইটভাটা কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এসব ইটভাটা প্রশাসন কে ম্যানেজ করে চলছে । জেলার মধ্যে শুধু পলাশবাড়ী উপজেলায় অবৈধ ভাবে গড়ে উঠার এতো বছর পরে এসব ইটভাটায় জেলা প্রশাসনের অভিযান জনমনে পরিবেশের জন্য ভালো একটি উদ্যোগ হলেও নানা আলোচনা সমালোচনা চলমান রয়েছে। সেই সঙ্গে কর্মহীন শ্রমিকদের পরিবারের মাঝে দূর্ভোগ ও হতাশা সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার আগে তাদের শ্রমিকদের বিকল্প কর্মসংস্থান ও মালিকদের ক্ষতি পূরুন দেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

উল্লেখ্য, এরআগে গত ১০ জানুয়ারি রবিবার পলাশবাড়ী উপজেলায় অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস. এম. ফয়েজ উদ্দিন। এসময় লাইসেন্স ও পরিবেশ ছাড়পত্র ব্যতীত নিষিদ্ধ এলাকায় ইটভাটা পরিচালনার অপরাধে তিনটি ইটভাটা ধ্বংস করা হয় এবং একই অভিযানে ১০টি মামলায় ১৬ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অথচ এই উপজেলাসহ গোটা জেলায় আরো প্রায় আড়াই শত অধিক অবৈধ ইটভাটা এখনো চলমান রয়েছে। এ অভিযানের পর কর্মহীন শ্রমিকেরা এ মানববন্ধন করেছে ।