করোনায় সরকারের আত্মতুষ্টি বিপদ ডেকে আনবে: আ স ম রব

প্রকাশিত: ২:৩২ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২০ | আপডেট: ২:৩২:অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২০

লন্ডন টাইমস ডিজিটাল।জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, করোনাভারাসে মৃত্যু ও সংক্রমণ অনেক বেড়ে যাওয়ার পরও নিয়ন্ত্রণে সাফল্যের দোহাই দিয়ে সরকারের আত্মতুষ্টি ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনবে। এ আত্মতুষ্টি মানুষের মূল্যবান জীবনকে মৃত্যুর হাতে তুলে দেওয়ার নামান্তর। বুধবার জেএসডির স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এ কথা বলেন তিনি।

আ স ম রব বলেন, ‘ভিয়েতনামে করোনায় একজনও মারা যায়নি, তবুও সে দেশের সরকার আত্মতুষ্টি প্রকাশ করছে না। বরং সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সর্বশক্তি নিয়োগ করছে। অথচ আমাদের দেশে করোনায় হাজার হাজার মানুয়ের মৃত্যু ও করোনা নিয়ন্ত্রণে বেহাল দশার পরও সরকার আত্মতুষ্টিতে ভুগছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘করোনা রোগী প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর চার মাস পূর্ণ হচ্ছে। প্রথমদিকে সংক্রমণ বিস্তারের গতি কম থাকলেও যতই দিন যাচ্ছে এর তীব্রতা ক্রমাগত বাড়ছে। মহামারির জরুরি পরিস্থিতি বিবেচনায় চার মাসে সরকার কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেনি। সরকারের ভুল পদক্ষেপের কারণে এখন নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা দুইই কমে যাচ্ছে, যার পরিণতি হবে ভয়াবহ।’

করোনা নিয়ে সরকারের প্রচারিত তথ্য-উপাত্ত জনগণের মাঝে দারুণ বিভ্রান্তি ও অবিশ্বাসের সৃষ্টি করছে মন্তব্য করে আ স ম রব বলেন, ‘সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী সরকার কোনো উদ্যোগ গ্রহণ না করায় দিন দিন সংক্রমণ পরিস্থিতি বিপজ্জনক পর্যায়ে উপনীত হচ্ছে। তাই সরকারকে অবশ্যই আত্মতুষ্টির আত্মঘাতী বিবেচনা থেকে সরে আসতে হবে।’

সভায় করোনা মোকাবেলায় জরুরি অবস্থা ঘোষণাসহ জাতীয় ঐকমত্য প্রতিষ্ঠা, সেনাবাহিনীর মাধ্যমে ত্রাণ বিতরণ, জাতীয় স্বাস্থ্য কাউন্সিল গঠন ও স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণ, পাটকল শ্রমিকদের স্বেচ্ছায় অবসরে পাঠানোর প্রতিবাদ, বন্যা পরিস্থিতি, বাজেটসহ দেশের সার্বিক পরিস্থিতি ও আঞ্চলিক ভূ-রাজনৈতিক বিষয়াবলীর ওপর আলোচনা করা হয়।

স্থায়ী কমিটির সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- দলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার, কার্যকরী সভাপতি সা ক ম আনিসুর রহমান খান কামাল, মো. সিরাজ মিয়া, কার্যকরী সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, স্থায়ী কমিটির সদস্য তানিয়া রব, অ্যাডভোকেট আব্দুল হাই, তৌহিদ হোসেন ও আব্দুর রহমান মাস্টারসহ অন্যান্য নেতারা।