লিংকনশায়ারের রোজ অব বেঙ্গলে অভিযান- ১ জন গ্রেপ্তার, অবৈধ ইমিগ্র্যান্ট ওয়ার্কারের দায়ে রেস্টুরেন্ট লাইসেন্স হারানোর পথে

প্রকাশিত: ১০:০৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২০ | আপডেট: ১০:০৯:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০২০

প্রতিনিধি,লিংকনশায়ার।  লন্ডন টাইমস নিউজ।  ইমিগ্র্যাশন অফিসার, পুলিশ ও বর্ডার এজিন্সির যৌথভাবে  লিংকনশায়ারের বোস্টনের বিখ্যাত রোজ অব বেঙ্গলে অভিযানের সময় হাতে নাতে ১জন অবৈধ অভিবাসীকে কাজের সময় গ্রেপ্তার করে। এসময় রেস্টুরেন্টে কর্মরত আরো একজন এশিয়ান ম্যানেজার-যিনি সিসিটিভি অপারেইট, ফুড এন্ড হাইজিন বুক রেকর্ড, ফায়ার সেইফটি ও শিশুদের ও জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে পর্যাপ্ত তথ্য ও সম্যুক ধারণা দিতে কর্মকর্তাদের ব্যর্থ হন, যাতে অভিযানের সময়ে অফিসারেরা রেস্টুরেন্টে জনস্বাস্থ্যের প্রতি হুমকী হিসেবে দেখছেন বলে জানা গেছে।

অভিযানের সময় রেস্টুরেন্ট মালিক জহীর উদ্দিন উপস্থিত ছিলেননা।  ইমিগ্রেশন কর্তারা কিচেনে ঐ অবৈধ অভিবাসীকে হাতে নাতে কাজের সময় ধরেন যার কোন ওয়ার্ক পারমিট এবং ব্রিটেনে ঢোকা ও থাকা কোন প্রমাণপ্ত্র দেখাতেও ব্যর্থ হন। এসময় তারা কিচেনে বেশ কিছু উপকরন নিয়ে পরীক্ষা চালিয়ে দেখেন কিচেনের উপকরণ ও সামগ্রী চালানোতে সে অভিজ্ঞ। যা তারা রেকর্ড ও নথিভুক্ত করেন।

রেস্টুরেন্টের সামনে কাজ করেন একজন এশিয়ান যিনি সিসিটিভি কীভাবে কাজ করে, ফুড হাইজিন রেকর্ড বুক প্রদর্শনেও ব্যর্থ হন এবং এসম্পর্কে তার কোন অভিজ্ঞতা না থাকার কথাও পুলিশকে জানান।

দুজন সহ সংশ্লিষ্ট স্টাফ কেউই রেস্টুরেন্ট কাজের কোন সনদ পত্রও দেখাতে পারেননি।

লিংকনশায়ারের চীফ পুলিশ কন্সটেবল  উদ্ভূত পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে রেস্টুরেন্ট এর লাইসেন্স বাতিলের ব্যাপারে মন্তব্য করেন।

গত ১৩ই ফেব্রুয়ারি ২০২০ সন্ধ্যা ৫.৩৯ মিনিটের সময় পরিচালিত এই অভিযানের ব্যাপারে ১৩ জুলাই ২০২০ কোর্টের নির্ধারিত তারিখ ছিলো। কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রেক্ষিতে কোর্টে ভার্চুয়ালভাবে মামলার কাজ পরিচালিত হওয়ায় এখন পর্যন্ত মামলার আউটকাম জানা যায়নি। কোর্ট উসার জানিয়েছেন মামলা নির্ধারিত তারিখেই জজ মহোদয় দেখেছেন। বিচার কার্যও সম্পন  হয়েছে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে।

লিংকনশায়ারের  পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, অবৈধ অভিবাসী রাখার দায়ে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান অভিবাসী আইন লংঘন করেছেন, হোম অফিসকে রিপোর্ট করতেও ব্যর্থ হয়েছেন, এর আগেও জহীর উদ্দিনের মালিকানার পূর্বে রোজ অব বেঙ্গলের অনিয়মতান্ত্রিক ও লাইসেন্স শর্ত ভঙ্গ করায় লাইসেন্স বাতিল হওয়ার রেকর্ড রয়েছে, বর্তমান মালিকাধীন রেস্টুরেন্ট জনস্বাস্থ্যের সকল গাইড লাইনসমূহ ভঙ্গ করেছেন, পুলিশ তাই আদালতে লাইসেন্স রদের জন্য বলেছে। লিংকন শায়ারের পুলিশ বলেছে উদ্দিন লাইসেন্স এর শর্ত সিরিয়াসলি ভংঙ্গ করেছেন।