যুক্তরাজ্য জাসদের ভার্চুয়াল সভায় হাসানুল হক ইনু- সার্বজনীন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা চালুর কোন বিকল্প নেই

প্রকাশিত: ১০:৫০ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০২০ | আপডেট: ১০:৫০:অপরাহ্ণ, জুলাই ২৩, ২০২০

লন্ডন প্রতিনিধি। ২১শে জুলাই মঙ্গলবার মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার,  জাসদের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা, ৭৫’ এর ৭ই নভেম্বরের সিপাহী জনতার অভ্যুত্থানের নায়ক কর্নেল আবু তাহের বীর উত্তমের ৪৪তম হত্যা দিবস উপলক্ষে যুক্তরাজ্য জাসদ আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সভায় জাসদ সভাপতি ও বাংলাদেশ সরকারের সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, করোনা ভাইরাস সবাইকে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, পুঁজিবাদ, মুক্তবাজার অর্থনীতি ও গনবিরোধী রাষ্টব্যবস্থার হাতে জনগনের ভাগ্য ছেড়ে দেওয়া যায়না। তিনি বলেন, মুক্তবাজার অর্থনীতি, পুজিঁবাদ এগুলো শুধু মুনাফা বুঝে, মানুষ বুঝেনা। এগুলো মানুষকে অবহেলা, সমাজে বৈষম্য ছাড়া আর কিছুই দিতে পারেনা। গনবিরোধী রাষ্ট ব্যবস্হা ও মুক্তবাজার অর্থনীতি দুর্নাতিবাজ ও লুঠেরা উৎপাদন- পুনরুৎপাদনের কারখানা । জাসদ তাই গনবিরোধী রাষ্ট্র  ব্যবস্থার পরিবর্তন ও দুর্নীতি- বৈষম্যের অবসানের লক্ষ্যে এবং সুশাসন – সমাজতন্ত্র প্রতিষ্টার লক্ষ্যে সংগ্রাম করছে । ইনু বলেন, আজ সময় এসেছে সংবিধান পর্যালোচনা করার। তাই সর্বজনীন স্বাস্হ্য সেবা, সর্বজনীন শিক্ষা, সর্বজনীন খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্হা চালুর কোন বিকল্প নেই।

জাসদ সভাপতি যুক্তরাজ্য জাসদের এই ভার্চুয়াল সভায় কর্নেল তাহেরের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা রেখে বলেন, কর্নেল তাহের ছিলেন মহান দেশপ্রেমিক মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার এবং ৭৫’ এর সিপাহী জনতার অভ্যুত্থানের মহানায়ক। সেই মৃত্যুঞ্জয়ী বীরকে আজ থেকে ৪৪ বছর আগে সামরিক শাসক জিয়ার একটি সাজানো মামলায় প্রহসনমুলক বিচারে ফাঁসি দিয়ে ঠান্ডা মাথায় খুন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কর্নেল তাহের যেমন মুক্তিযুদ্ধে জীবন বাজি রেখে লড়াই করেছিলেন, ঠিক তেমনি পচাত্তরের ৭ই নভেম্বর জাতির সংকটকালে সিপাহী- জনতার অভ্যুত্থানের মাধ্যমে গনবিরোধী রাষ্ট ব্যবস্হা পরিবর্তনের বিপ্লবী প্রচেষ্টা চালিয়েছিলেন। জাসদ আজও সেই লক্ষ্যেই রাজনীতি করছে ।

ভার্চুয়াল সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক শিরিন আক্তার এমপি। তিনি তাঁর বক্তব্যে শহীদ কর্নেল তাহেরের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, কর্নেল তাহেরের লড়াই ছিল সামরিক শাসন, অগনতান্ত্রিক নীতিমালা, রাষ্ট্রীয় শোষন পদ্ধতির বিরুদ্ধে। সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গীবাদ, কুশাসনের বিরুদ্ধে ছিল তাঁর প্রতিবাদ এবং নতুন সমাজ নির্মানে সত্য প্রতিষ্টাই ছিল তাঁর জীবনপন। তিনি বলেন, মৃত্যুকে মহিমান্বিত করার একটাই পথ জীবনকে সমুজ্জল করা। কর্নেল তাহের তেমনি একটি নাম, যার কাজ তাঁর মৃত্যুকে মহিমান্বিত করেছে।

যুক্তরাজ্য জাসদ সভাপতি মুক্তিযুদ্ধা এডভোকেট হারুনুর রশীদের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আবুল মনসুরের সঞ্চালনায় তাহের দিবসের ভার্চুয়াল সভায় আরো  বক্তব্য রাখেন, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক এবং সিলেট জেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক কে এ কিবরিয়া চৌধুরী, যুক্তরাজ্য জাসদের সভাপতি এডভোকেট হারুনুর রশীদ, সহ সভাপতি আব্দুল হালিম চৌধুরী, যুক্তরাজ্য জাসদের সাবেক সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সাবেক সাধারন সম্পাদক ইমতিয়াজ আহমদ, ইউরোপিয়ান জাসদ নেতা মতিয়ুর রহমান মতিন, যুক্তরাজ্য জাসদের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সালেহ আহমদ, যুক্তরাজ্য নারীজোট নেত্রী রেহানা বেগম এবং জাসদ নেতা আব্দুল হক।

আরও উপস্হিত ছিলেন এবং বক্তব্য রাখেন, কানাডা জাসদ নেতা সাইফুল চৌধুরী, যুক্তরাজ্য ন্যাপের সভাপতি আব্দুল আজিজ, সাধারন সম্পাদক সৈয়দ হাসান আহমদ, যুক্তরাজ্য বাসদ নেতা গয়াসুর রহমান গয়াস, যুক্তরাজ্য ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সাধারন সম্পাদক জামাল খাঁন প্রমূখ।