অবৈধ উপায়ে পাওয়া বাংলাদেশি ও পাকিস্তানিদের শতাধিক ভিসা বাতিল করল দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশিত: ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২০ | আপডেট: ৬:২৪:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২০

ফারুক আস্তানা ।অবৈধ উপায়ে প্রদান করা বাংলাদেশি ও পাকিস্তানি নাগরিকদের শতাধিক ভিসা বাতিল করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার।

বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার স্বরাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী অ্যারন মোটসোলেদী স্থানীয় গণমাধ্যমে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আফ্রিকার দেশ নামিবিয়ায় অবস্থিত দক্ষিণ আফ্রিকা দূতাবাসের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে ২০১৮ সাল থেকে অবৈধ ভাবে ভিসা ইস্যু করে দক্ষিণ আফ্রিকায় মানব পাচার করে আসছিল সংঘবদ্ধ একটি চক্র।

“এমন একটি সিন্ডিকেট চিহ্নিত করতে পেরেছে কর্তৃপক্ষ। এর সূত্র ধরে বাংলাদেশি ও পাকিস্তানের নাগরিকদের ইতোমধ্যে ইস্যু করা শতাধিক ভিসা বাতিল করেছে  দক্ষিণ আফ্রিকা।”

অবৈধভাবে ভিসা ইস্যুর এই অভিযোগ ধরা পড়ার পর নামিবিয়ার রাজধানী উইন্ডহোকেতে অবস্থিত দক্ষিণ আফ্রিকার দূতাবাসে কর্মরত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বরখাস্ত করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র বিভাগ। তবে ওই কর্মকর্তার নাম প্রকাশ করা হয়নি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আটক দূতাবাস কর্মকর্তাকে  জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এই রুটের  দূতাবাসের কর্মকর্তাদের আর কে বা কারা জড়িত তা জানার চেষ্টা চলছে। নামিবিয়া, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মানবপাচার চক্রের বাকি সদস্যদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে বলে জানান মন্ত্রী অ্যারন।

স্থানীয় গণমাধ্যমে তিনি বলেন, “অভিযুক্ত দূতাবাস কর্মকর্তা নামিবিয়ার মিশনে নিযুক্ত হওয়ার পর ২০১৮ সালের ১৭ ই অক্টোবর থেকে এই কর্মকর্তা যে সমস্ত ভিসা জারি করেছিলেন সবগুলো ভিসা পুনরায় খতিয়ে দেখা হবে।

এ ঘটনা তদন্ত করে জড়িত দেশি-বিদেশি সবাইকে বিচারের মুখোমুখি করা হবে বলে জানান দক্ষিণ আফ্রিকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যারন মোটসোলেদী।