আত্রাইয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা সংস্কার করলো মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: ৪:৫২ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২০ | আপডেট: ৪:৫২:অপরাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২০

নাদিম আহমেদ অনিক,রাজশাহী বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান :নওগাঁর আত্রাইয়ে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করছে অতি বর্ষণে বিধ্বস্ত রাস্তা।

গত কয়েক দিন থেকে অবিরাম বর্ষণে উপজেলা সদরের নিকটে সাহেগঞ্জ জনতা ব্যাংক থেকে শিবপুরের রাস্তাটি ভেঙে যায়। এ রাস্তা ভেঙে যাবার ফলে হাজার হাজার লোক চলাচলে চরম দুর্ভোগের শিকার হন। জনতা ব্যাংক থেকে শিবপুরের রাস্তাটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এখানে আত্রাই মদীনাতুল উলুম মাদ্রাসা নামে একটি বৃহত কওমী মাদ্রাসা রয়েছে। এ ছাড়াও সেখানে একটি কেজি স্কুল কাম মাদ্রাসা, একটি কেন্দ্রীয় গোরস্থান ও কলকাকলী মডেল স্কুল এ্যান্ড কলেজ নামে একটি বড় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছাড়াও শিবপুর গ্রামসহ এলাকার হাজার হাজার লোকজনের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি অতি বর্ষণে ভেঙে যাওয়ায় চলাচলে তারা চরম দুর্ভোগের শিকার হন।

উপজেলা সদরের একেবারে নিকটবর্তী হলেও এ রাস্তাটি যুগ যুগ থেকে পাকা করণ না হওয়ায় প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে জনসাধারণকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এবারেও কয়েক দিনের লাগাতার অতি বর্ষণের ফলে রাস্তাটি ভেঙে যায়। মাদ্রাসা শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর চলাচল নিশ্চিত করতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তাটি নির্মান করে।

আত্রাই শহীদ মনোয়ার নূরানী স্কুল এ্যান্ড মাদ্রাসার শিক্ষক ক্বারী মো. জাকির হোসেন বলেন, যুগ যুগ থেকে আমরা অবহেলিত। উপজেলা সদরের খুব কাছের মহল্লা হলেও স্বাধীনতার পর থেকে পাকা রাস্তা নির্মিত হয়নি। ফলে প্রায় প্রতি বছরেই বর্ষা মৌসুমে আমাদের এ রাস্তা ভেঙে যায়। রাস্তাটি ভেঙে যাওয়ায় আমাদের প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের চলাচল কুবই কষ্টকর হয়। শিবপুর গ্রামের আব্দুল করিম বলেন, এ রাস্তা দিয়ে যেহেতু শক্ষার্থী এবং আমাদের গ্রামসহ বেশ কয়েক গ্রামের লোকজন চলাচল করেন। তাই বৃহত্তর জনস্বার্থে রাস্তাটি পাকা করা খুবই প্রয়োজন।