ওসি বললেন ‘বক্তব্য নাই’ লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বিয়ের প্রলোভনে কয়েকবছর ধরে ধর্ষণ!

প্রকাশিত: ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০ | আপডেট: ১২:০৭:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০
অ আ আবীর আকাশ,লক্ষ্মীপুর: দীর্ঘ ছয় বছর ধরে বিয়ের প্রলোভনে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করে আসছে এক প্রেমিক। শুধু তাই নয়, এরই মধ্যে ওই প্রেমিক বিয়ে করে এক সন্তানের জনক হয়েছেন, তবুও প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে লাগাতার ধর্ষণ করেছে বলে ভুক্তভোগী নিজেই জানিয়েছেন। ঘটনাটি লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার সরকারি আশ্রয়ন প্রকল্পের গুচ্ছগ্রাম বা কলোনির।
জানা গেছে কমলনগর উপজেলার কালকিনি ইউনিয়নের মতিরহাটস্থ সরকারি আশ্রয়ন প্রকল্পের গুচ্ছগ্রাম বা কলোনির শফিক উল্লাহ ও রুশী বেগমের কন্যা (১৯)কে একই আশ্রয়নের মোয়াজ্জেম হোসেন ও হোসনে আরা বেগমের বখাটে ছেলে ফারুক দীর্ঘ ছয় বছর ধরে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে আসছে। শুধু তাই নয় ওই মেয়েটিকে বিয়ে না করে অন্যত্র বিয়ে করে এক সন্তানের পিতা হয়েছে। তবুও মেয়েটিকে নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে এবং বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে আসছে।
সর্বশেষ গত মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে কলোনির উত্তরে (খালপাড়ে) কলাবাগানে নিয়ে মেয়েটিকে আবারো ধর্ষণের সময় স্থানীয় তাজল হক বালি দেখে চিৎকার দিলে নুর আলম ও সোবহান মাঝি তাদের ধরার চেষ্টা করলে মেয়েটি খালের পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়ে আর ছেলেটি দৌড়ে পালিয়ে যায়।
তাজল হক বালি এ প্রতিবেদককে বলেন -‘রাত দশটার দিকে কলার ঝোপঝাড় থেকে মচমচ আওয়াজ আসলে আমি চিতকার দিই। অন্যরা লাইট নিয়ে এগিয়ে সে ঘটনাটি চাক্ষুষ দেখতে পায়।’
ঘটনাটি ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আব্দুল খালেক ও স্থানীয় বিএনপি নেতা নুরনবী সহ আরো কয়েকজন মিলে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। তারা ভুক্তভোগী ও তার পরিবারকে কঠোরভাবে শাসিয়েছে যে সালিশ না হওয়া পর্যন্ত কারো কাছে যেন মুখ না খুলে।
 নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মেয়ের ফুফু বলেন-‘আমরা এর উপযুক্ত বিচার চাই। যেন আর কোন বখাটে কোনো মেয়ের দিকে না তাকাতে পারে।’
 এই নিয়ে কমলনগর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ নুরুল আফসার বলেন-‘ এই নিয়ে আমার কোনো বক্তব্য নাই। আপনারা মেয়ের গার্ডিয়ানকে বলেন আমার সাথে যোগাযোগ করতে।’