লেবাননে দুই সপ্তাহের জরুরি অবস্থা জারিঃআরও ১ বাংলাদেশী নিহত,ব্যর্থতার অভিযোগে এমপির পদত্যাগ

প্রকাশিত: ১০:৫৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০ | আপডেট: ১০:৫৭:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

লেবানন সংবাদ দাতা, লন্ডন টাইমস। লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর শহরটিতে দুই সপ্তাহের জন্য রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন।এরইমধ্যে মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেছে। আহত হয়েছে প্রায় চার হাজার মানুষ।মৃতের ও আহতদের সংখ্যা বৃদ্ধির আশংকা করা হচ্ছে।

লেবাননে বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত তিন বাংলাদেশি নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বুধবার দুপুরে বৈরুতের বাংলাদেশ দূতাবাস দুই বাংলাদেশির পরিচয়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (শ্রম) আবদুল্লাহ আল মামুন  বলেন, এখন পর্যন্ত তিন বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর জেনেছি। হাসপাতাল থেকে দুজনের পরিচয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হতে পেরেছি।‘তাদের একজন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মেহেদি হাসান। অন্যজন মাদারীপুরের মিজান। দুজনই এখানে বৈধভাবে কাজ করছিলেন। এছাড়া আরেকজনের পরিচয় এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি।’

বৈরুতের বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত অন্তত ৫৯ জন বাংলাদেশি বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন। বিস্ফোরণে আরও বাংলাদেশি নাগরিকের হতাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন তারা।লেবাননে বসবাসরত বাংলাদেশিদের মধ্যে আরও কেউ হতাহত হয়েছেন কিনা, তা জানতে অনুসন্ধান চলছে বলে জানিয়েছেন আবদুল্লাহ আল মামুন।এদিকে বৈরুত বন্দরের একটি ওয়্যার হাউসে ভয়াবহ বিস্ফোরণে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে মেরিটাইম টাস্কফোর্সের অধীনে নিয়োজিত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জাহাজ বিজয়ের ২১ সদস্য আহত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব বৈরুত মেডিকেল সেন্টারে (এইউবিএমসি) ভর্তি করা হয়েছে।অন্যদের ইউনিফিলের তত্ত্বাবধানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হেলিকপ্টার/অ্যাম্বুলেন্সযোগে হামুদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তারা আশঙ্কামুক্ত।শান্তিরক্ষা মিশন ইউনিফিলের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আহত নৌ সদস্যদের চিকিৎসা চলমান রয়েছে। এ দুর্ঘটনায় নৌবাহিনী জাহাজ বিজয়ের বিস্তারিত ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা হচ্ছে।এ বিষয়ে নৌবাহিনী জাহাজ, ইউনিফিল সদর দফতর ও বৈরুতের বাংলাদেশি দূতাবাসের সঙ্গে নৌবাহিনী সদর দফতরের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে।

ইউনিফিল হেড অব মিশন এবং ফোর্স কমান্ডার ও মেরিটাইম টাস্কফোর্স কমান্ডার সার্বিক পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন।এ ব্যাপারে তারাও সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। ঘটনার অব্যবহিত পরই বৈরুতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল জাহাঙ্গীর আল মোস্তাহিদুর রহমান সরেজমিন বানৌজা বিজয় পরিদর্শন করেন। এছাড়া আহতদের হাসপাতালে স্থানান্তর ও যথাযথ চিকিৎসায় প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহযোগিতা করেন।

সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগ-

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরণে সরকারের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে পার্লামেন্ট থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির এমপি মারওয়ান হামাদে।

আল-আরাবিয়াহকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, একটি অকার্যকর সরকারের অংশ হিসেবে আমি নিজেকে সম্মানিত বোধ করছি না।

তিনি বলেন, আজ রাতে প্রতিনিধি সভা থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে আমি পূর্ণ স্বাধীন। কারণ আমি সেসব প্রতিষ্ঠানের সদস্য হিসেবে নিজেকে সম্মানিত বোধ করছি না, যেগুলো দেশের বিপর্যয় সম্পূর্ণ পক্ষপাতমূলকভাবে দেখছে। একটি অকার্যকর প্রেসিডেন্ট ও সরকারের অধীন বিশ্বের সামনে দেশ বিপর্যস্ত ও নিঃস্ব হয়ে পড়েছে।

সাবেক সাংবাদিক মারওয়ান হামাদে ২০০৪ সালে একটি গুপ্তহত্যার থেকে প্রাণে বেঁচে ফিরেছেন। তখন গাড়িবোমা বিস্ফোরণে তিনি আহত হলেও তার নিরাপত্তা প্রহরী নিহত হয়েছিলেন। ওয়ালিদ জুম্বালাতের নেতৃত্বাধীন প্রগতিশীল সমাজতান্ত্রিক পার্টির একজন সদস্য এ রাজনীতিবিদ।