সেপ্টেম্বর থেকে স্বাভাবিক হতে পারে পাসপোর্ট কার্যক্রম

প্রকাশিত: ১০:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২০ | আপডেট: ১০:০৭:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১১, ২০২০

ঢাকা: দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর বন্ধ হয়ে যায় পাসপোর্ট অফিসের সব স্বাভাবিক কার্যক্রম। শুধু রিইস্যু কার্যক্রম চললেও সেটা খুবই মন্থর গতিতে চলছে। তবে সকল কার্যক্রম আবারও স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়ে পাসপোর্ট অধিদফতর। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে আগারগাঁওসহ সারাদেশে পাসপোর্টের কার্যক্রম চালু হবে।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) ইমিগ্রেশন অ্যান্ড পাসপোর্ট অধিদফতর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পাসপোর্ট অধিদফতর সূত্র জানায়, গত ৮ মার্চ দেশে করোনা সংক্রমিত হওয়ার পর ২০ মার্চ পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ ও বিতরণ বন্ধ হয়ে যায়। এরপর রিইস্যু কার্যক্রম ধীর গতিতে চললেও ডেলিভারিতে ভোগান্তি বাড়ে। নির্দিষ্ট সময়ের দ্বিগুণ তিনগুণ সময় পার হলেও অনেকে পাসপোর্ট ডেলিভারি পায়নি। এ সময় পুলিশ ভেরিফিকেশন কার্যক্রমও বন্ধ থাকে। ফলে গত পাঁচ-ছয় মাসে পাসপোর্ট প্রত্যাসীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। অবশ্য পাসপোর্টের চাহিদাও অনেক কমে যায় এ সময়। শুধু প্রবাসীদের ভোগান্তি বাড়ে। বন্ধের শুরুর দিকে হজে যেতে ইচ্ছুকদের স্পেশাল সার্ভিস দেওয়া হলেও সৌদি সরকার হজ বন্ধ ঘোষণা করলে সেই চাপও আর থাকে না।

আগারগাঁও পাসপোর্ট অধিদফতরের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা  বলেন, গত পাঁচ-ছয় মাসে করোনাকালীন সময়ে পাসপোর্ট অধিদফতরের কর্মকর্তা কর্মচারীরা শিফট করে করে ডিউটি করেছে। এক দল দুদিন দায়িত্ব পালন করে পরের দুদিন কোয়ারেনটাইনে কাটিয়েছেন। ফলে সব ধরনের কার্যক্রমে ভাটা পড়ে। তবে অধিদফতরসহ সব অফিসে পাসপোর্ট কার্যক্রম চালুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। কবে নাগাদ চালু হবে সঠিক দিনক্ষণ না বললেও সেপ্টেম্বর মাসে চালু হতে পারে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

পাসপোর্ট অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম চালুর ব্যাপারে মাঠ পর্যায়ে কোনো নির্দেশনা গেছে কি না জানতে চাইলে রংপুর আঞ্চলিক অফিসের একজন কর্মকর্তা  বলেন, ‘অনেকদিন ধরে কোনো কাজকর্ম নেই। শুনেছি আগামী মাসের শুরুর দিকে পাসপোর্ট কার্যক্রম আগের মতো চালু হবে। তবে এ ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা বা চিঠি পাওয়া যায়নি। করোনার শুরুতে চিঠি দিয়েই অফিসের কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছিল।’

রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয়ের আরেক কর্মকর্তা বলেন, ‘সেপ্টেম্বরের শুরুতে পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করা হবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই তা করা হবে। এজন্য সকল প্রকার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

পাসপোর্টের সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের আরেক কর্মকর্তা  বলেন, ‘অধিদফতরের একটা মিটিংয়ে ছিলাম। সেখানে পাসপোর্টের কার্যক্রম খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেপ্টেম্বরে খোলার কথা রয়েছে। এরপর সব ধরনের পাসপোর্ট সেবা দেওয়া শুরু হবে। একইসঙ্গে ই-পাসপোর্ট সেবাও নেওয়া যাবে।’

আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিসের একজন পরিচালক  বলেন, ‘পাসপোর্টের স্বাভাবিক কার্যক্রম চালু করতে অধিদফতরে দফায় দফায় মিটিং করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি কিভাবে বজায় রেখে পাসপোর্ট প্রত্যাসীদের সেবা দেওয়া যায় সে বিষয়েও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

পাসপোর্টের ওই পরিচালক আরও বলেন, ‘অধিদফতরে নতুন ডিজি এসেছেন। নতুন ডিজি সকলকে নিয়ে বৈঠক করছেন। পাসপোর্টের সকল কার্যক্রম খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

জানতে চাইলে পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোস্তফা আইয়ুব চৌধুরী  বলেন, ‘সবেমাত্র জয়েন করেছি। এখানকার অভিজ্ঞ কর্মকর্তাদের কাছ থেকে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি। সকলের সঙ্গে মিটিং করছি। সবকিছু স্বাভাবিক হবে বলে আশা করছি।’